ধারাবাহিক রচনা: আমাদের শ্রী অরবিন্দ(পর্ব-৩১)

শ্রী অরবিন্দ ও শ্রীমায়ের জীবনকে কেন্দ্র করে প্রকাশিত এই ধারাবাহিকটি ইতিমধ্যে পাঠকমহলে সমাদৃত হয়েছে। আমাদের বিভিন্ন শ্রেণীর পাঠকমণ্ডলীর মধ্যে শ্রী অরবিন্দ ও মায়ের জীবনী নিয়ে চর্চা করেন কিংবা শ্রী অরবিন্দ আশ্রমের সঙ্গে যুক্ত পাঠকও রয়েছেন নিশ্চয়ই। তাঁদের প্রতি আমাদের বিনম্র আবেদন যে, ধারাবাহিকটি পড়তে পড়তে কোনোরকম তথ্যভিত্তিক ত্রুটি চোখে পড়লে অনুগ্রহ করে তৎক্ষণাৎ আমাদের দপ্তরে যোগাযোগ করুন, অথবা লেখার শেষে
কমেন্টেও জানাতে পারেন। এছাড়া লেখার নীচে দেওয়া লেখকের ফোন নম্বরে সরাসরি করতে পারেন যোগাযোগ। আমরা ত্রুটি মেরামতে সদা সচেষ্ট। –সম্পাদক

হঠ যোগ কী?

মুকুল কুমার সাহা: আমরা আগের তিনটি পর্বে ভারতের মুনি-ঋষিদের দেওয়া পুরাতন যোগের উদ্দেশ্য এবং শ্রীঅরবিন্দের যোগের উদ্দেশ্য সম্বন্ধে কিছু আলোচনা করেছি। আমরা এখন পুরাতন যোগের যোগ-পন্থা সম্বন্ধে কিছু আলোচনা করার চেষ্টা করছি। শ্রী অরবিন্দের ‘The Synthesis of Yoga‘ বইটির বঙ্গানুবাদ করেছেন সাধক শ্রী শ্যামাচরণ চট্টোপাধ্যায়। তিনি এই বইটির নামকরণ করেছেন ‘যোগ সমন্বয়‘। The Synthesis of Yoga এই বইটিতে শ্রী অরবিন্দ পুরাতন যে কয়েকটি যোগ সম্বন্ধে আলোচনা করেছেন তার মধ্যে হঠ যোগ ও রাজ যোগ রয়েছে। তিনি বলেছেন জ্ঞান যোগের উদ্দেশ্য যেমন সমাধি লাভ করা, হঠ যোগ ও রাজ যোগেরও ওই একই উদ্দেশ্য সমাধি লাভ করা। কিন্তু জ্ঞান যোগের পদ্ধতির সঙ্গে রাজ যোগ ও হঠ যোগের পদ্ধতির বিরাট পার্থক্য রয়েছে। হঠ যোগ এক শক্তিশালী, কিন্তু দুরূহ ও কষ্টকর প্রণালী।

সমাধি কাকে বলে সেটা আমাদের প্রথমেই ভালো করে বুঝে নিতে হবে। যোগের স্বরূপ হল ভগবানের সঙ্গে মিলনের প্রয়াস ও তার প্রাপ্তি। আমাদের সাধারণ মানসিকতার আয়ত্তাধীন চেতনার যে স্তর ও তীব্রতা তা অপেক্ষা চেতনার আরো উচ্চস্তরে ও তীব্রতায় উঠে যেতে হয় ভগবানকে লাভ করবার জন্য। সমাধি হচ্ছে চেতনার এইরকম এক উচ্চতর স্তর ও মহত্তর তীব্রতার স্বাভাবিক স্থিতি। এই স্তরে উন্নীত হতে পারলে ভগবানের সত্তাকে জানতে, তার মধ্যে বিলীন হতে, তার সঙ্গে অভিন্ন হতে পারা সম্ভব হয়। সমাধি লাভই যদি যোগের উদ্দেশ্য হয় তাহলে যার প্রকৃতিতে যে যোগ পদ্ধতি কম কষ্টকর বলে মনে হবে তিনি সেই সাধনপন্থা ধরে বরাবর চলতে পারলেই অভীষ্ট সিদ্ধ হবে।

শ্রী অরবিন্দ বলেছেন তাঁর পূর্ণ যোগে হঠ যোগের গুরুত্ব গৌণ। হঠ যোগের মূল ভাব সম্বন্ধে আলোচনা করা ছাড়া আর বেশি কিছু করা আমাদের প্রয়োজন নেই। এই যোগের পদ্ধতিকে পুরোপুরি বাদ দেওয়া যায়, নয়তো তাদের প্রয়োগ করা যায় শুধু প্রাথমিক বা প্রাসঙ্গিক সহায়তার জন্য।

হঠ-যোগীরা বলেন শরীর ও অন্তঃপুরুষের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্বন্ধ বিদ্যমান। তাঁদের কাছে শরীর শুধু এক জীবন্ত জড়ের স্তুপ নয়, এ হল আধ্যাত্মিক সত্তা ও শরীরের মধ্যে(অন্নময় সত্তার মধ্যে) এক রহস্যপূর্ণ সেতু। এই পথে যেতে হলে এক দীর্ঘ দুরূহ ও পুঙ্খানুপুঙ্খ সাধনার প্রয়োজন হয়। প্রকৃতির বিধান অনুযায়ী সঙ্কীর্ণ ও দুঃখময় যে সব গ্রন্থি, তার মধ্যেই আমরা সাধারণ জীবনে আমাদের চেতনাকে নিয়োজিত রাখি। হঠ যোগ আমাদের ভগবানের সঙ্গে তাঁর চেতনার সঙ্গে ঐক্য বা মিলন সাধন করে।

আমরা যোগের ব্যাপারে গভীর ভাবে চিন্তা করলে, যোগ সম্বন্ধে জানতে চাইলে প্রথমেই আমাদের মনের মধ্যে এটাই উদয় হয় বর্তমানে আমরা সাধারণ চেতনার একটা সাধারণ মানুষ হলেও আমাদের এই শরীরের মধ্যেই কোথাও রয়েছে ভগবানের পূর্ণ চেতনা ও পূর্ণ আনন্দ।

যাই হোক, হঠ যোগ শিক্ষার দুটি প্রধান অঙ্গ হল আসন ও প্রাণায়াম, অন্য গুলি এদের সহায়ক মাত্র। আসনের অর্থ শরীরকে নিশ্চল ভাবে রাখতে অভ্যস্ত করা। আর প্রাণায়ামের অর্থ শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যায়ামের দ্বারা প্রাণশক্তিকে চালনা করা ও নিরোধ করা। আসনের সাহায্যে শরীরকে অচঞ্চল স্থির হতে শিক্ষা দেওয়া হয়। প্রকৃতির প্রাণশক্তির অফুরন্ত ভান্ডার থেকে প্রাণশক্তি বা জীবনীশক্তি শরীরের ওপর সর্বদাই এসে পড়ছে, শরীর সেই শক্তিকে সব সময় ধারণ করতে সক্ষম নয়, নানা কাজের মধ্যে দিয়ে অতিরিক্ত শক্তিটুকু ক্ষয় করতে আমরা বাধ্য হই। শরীরকে শান্ত ও নিঃস্পন্দ করার অর্থ এই প্রাণশক্তি সবটুকু নিজের মধ্যে ধারণ করা। প্রাণশক্তিকে শরীরের মধ্যে জমিয়ে রাখতে পারলে শরীর বলীয়ান, স্বাস্থ্যপূর্ণ, কমনীয় হয়ে ওঠে।

হঠ যোগ সম্বন্ধে জানতে আমরা আর একটি পর্বের জন্য অপেক্ষা করব। কারণ হঠ যোগের স্বল্প ক্রিয়ার মাধ্যমে(আসন ও প্রাণায়াম) আমাদের শরীরকে নীরোগ রাখতে বর্তমানে এর ব্যবহার সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়েছে। যোগীদের কাছে এর আসল উদ্দেশ্য ছিল ভগবানকে লাভ করা, সেই সঙ্গে আসন ও প্রাণায়ামের ফলস্বরূপ কুন্ডলিনী শক্তিকে জাগরিত করে সাধারণ মানুষের অলভ্য অদ্ভুত শক্তির অধিকারী হওয়া।

(দ্বিত্রিংশ পর্ব আগামী রবিবার)

লেখকের সঙ্গে যোগাযোগ করুন- 8584063724

৩০ম পর্বটি পড়তে ক্লিক করুন- https://agamikalarab.com/2020/06/17

Published by Agami Kalarab

Love to be the voice of those who are unheard. Nation lover and a true fundamentalist.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: