এক নজরে দেখুন এবার কলকাতার জনপ্রিয় পাঁচটি পুজোর থিম

ঋদ্ধিমান রায়, আগামী কলরব: দুর্গাপুজোয় সেরাদের লড়াইয়ের কুরুক্ষেত্র হল কলকাতা। আর এই লড়াইটা মূলত উত্তর ও দক্ষিণ কলকাতার মধ্যে– থিমের লড়াই, চমকের লড়াই, ভিড় টানার লড়াই। এক কথায় কোনওবারেই ফয়সালা হয় না এই লড়াইয়ের। দুই প্রান্তের বিখ্যাত পুজোগুলোর আকর্ষণে চতুর্থী থেকে দশমী এমনকি একাদশীতে, প্রতিদিনই ঢল নামে দেশবিদেশের লক্ষাধিক মানুষের।

উৎকর্ষতার দিক থেকে বিচার করে কলকাতার সবচেয়ে জনপ্রিয় পাঁচটি পুজোকে চিহ্নিত করা কার্যত অসম্ভব কাজ। আর তা করা হলেও অবশ্যই সমালোচনাযোগ্য এবং বিতর্কের অবকাশ রাখে। সেটা স্বীকার করে নিয়েই বিগত কয়েক বছরের পুজোর থিম- পরিকল্পনা আর জনসমাগমের নিরিখে ২০১৯ এ কলকাতার সম্ভাব্য জনপ্রিয় পাঁচটি পুজোর কথা বলা হল।

শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাব

রাণী পদ্মাবতীর দুর্গ, বাহুবলীর মাহিষ্মতী রাজপ্রাসাদ কিংবা পুরী জগন্নাথ দেবের মন্দির নির্মাণ করে ইতিমধ্যে গিনেস বুকে রেকর্ড তৈরি করে ফেলেছে শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবের পুজো। এবারের ভাবনা চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের আমলের এক প্রাসাদোপম মন্দির। লেকটাউনগামী বাসে করে খুব সহজেই পৌঁছে যেতে পারেন শ্রীভূমি, অবশ্য হাতে সময় নেবেন যথেষ্ট।

মুদিয়ালী ক্লাব

মুদিয়ালীতে এবারের আকর্ষণ ফাইবার কাচের উপর রঙ-চিত্র

সাবেকী প্রতিমার আবহে খুঁটিনাটি শৈল্পিক কাজকর্মেই মুদিয়ালী বরাবর আগ্রহী, থিমের চমক তৈরিতে নয়। তাদের এবারের ভাবনা হল “সাজিয়ে পূজারী ডালি, রঙের হাটে মুদিয়ালী”। ফাইবার কাচের মধ্যে বিভিন্ন পেন্টিং, চুড়ি এবং আলো-রং এর মধ্য দিয়ে শৈল্পিক কারুকার্য ফুটিয়ে তোলাই এবারে মুদিয়ালীর ভাবনা। রবীন্দ্র সরোবর মেট্রো স্টেশন থেকেই সহজে পৌঁছনো যায় এই পুজো দেখার জন্য।

নাকতল উদয়ন সংঘ

এবারের নাকতলা উদয়ন

দক্ষিণ কলকাতার পুজো পরিক্রমাকালে সাধারণ মানুষের মনে যে পুজোটির নাম একবার অন্তত না এলেই নয়, তা অবশ্যই নাকতলা উদয়ন সংঘ। গতবারে পরিবর্তনশীল ‘কাল’ এর মত মণ্ডপের থিম মুহূর্তে মুহূর্তে বদলে শহরকে চমকে দিয়েছিল উদয়ন সংঘ। এবার নাকতলা উদয়ন এর ভাবনা- ‘জন্ম’। রূপায়ণের দায়িত্বে থাকা পরিকল্পকার ভবতোষ সুতার জানান– মণ্ডপের বহিরঙ্গ ও অন্তরঙ্গ নির্মাণে দুটি পৃথক ভাবনা উপস্থাপিত করা হয়েছে। বাইরের ভাবনা এক অখণ্ড চিন্তন; যাতে দর্শক মন্ডপের কাছাকাছি এলেই যে কোনো স্থান থেকে মন্ডপ সহ প্রতিমাকে অখণ্ডভাবে দর্শনলাভ করতে সক্ষম হবেন। অন্যদিকে মণ্ডপের অন্তরঙ্গে রয়েছে এক উপলব্ধিজাত দর্শন– যাতে দৈহিক জন্ম- মৃত্যু নয়, বরং মানসিক জন্ম- মৃত্যুর দার্শনিক ভাবনা প্রকাশ পাবে বলে জানা যাচ্ছে। প্রায় ১০০০০ কলসির ব্যবহার করে জল- বাতাসের সমন্বয়ে এক শব্দময়তার নির্মাণও পরিবেশনা করা হয়েছে এবার। নাকতলা উদয়ন দর্শন করার জন্য নিকটতম মেট্রো স্টেশন হল নাকতলা বা গীতাঞ্জলি।

দেশপ্রিয় পার্ক

সুবিস্তৃত পরিধির সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে দেশপ্রিয় পার্কের পুজো স্বাধীন ভাবনার ক্ষেত্রে সাধারণত আর পাঁচটি মন্ডপের থেকে কিছুটা এগিয়ে থাকে। তা বলে তার তুমুল জনপ্রিয়তায় এটি মুখ্য কারণ নয়, বরং সৃজনী ভাবনা-চিন্তার বহির্প্রকাশের ক্ষেত্রে প্রতিবারেই ছক্কা হাঁকাতে দেখা যায় দেশপ্রিয় পার্ককে। হাজার হাতের দুর্গা, হোয়াইট টেম্পল ইত্যাদির পর এবারের থিম– চালচিত্র। সাড়ে ষোলো হাজার বর্গফুটের মন্ডপের সমগ্র ভাবনাই এবার চালচিত্রের আধারে গড়ে উঠেছে। দেশপ্রিয় পার্কের নিকটতম মেট্রো স্টেশন কালীঘাট।

কুমোরটুলী পার্ক

কুমোরটুলী পার্কের এবারের থিম

বছর বছর ক্রমশ জনপ্রিয়তার শিখরে উঠছে উত্তর কলকাতার কুমোরটুলি পার্কের পুজো। এবারের থিম হল ‘উঁকিঝুঁকি‘। ভিনগ্রহের প্রাণীরাই এবার থিমের উৎস। ইউ.এফ.ও থেকে এই ভিনগ্রহের প্রাণীরা উৎসাহ নিয়ে দেখতে এসেছে কুমোরটুলির পুজো। এই পুজো এবার নিঃসন্দেহে এক মজার অভিনব থিম হয়ে উঠতে চলেছে। কুুুমোরটুলী পার্ক দর্শন করতে নামতে হবে শোভাবাজার সুতানুটি মেট্রো স্টেশনে।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s